চোঁখের বিভিন্ন রোগের জন্য দায়ী একমাত্র স্মার্টফোন

স্টাফ রিপোর্টার
মোঃরফিকুল ইসলামঃ- স্মার্ট ফোন ছাড়া এখন এক মুহূর্তও চলে না বললেই চলে। নিজেকে আপডেট রাখা থেকে শুরু করে ফ্যাশন সব জায়গায় সবার উপরে থাকে স্মার্ট ফোন।

সবসময় মোবাইল স্ক্রিনে চোখ রাখা,এটি একটি নতুন প্রজন্মের জন্য ফ্যাশন।কিন্তুু এতে বাড়ছে নানা ক্ষতির পরিমাণ। অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহারের ফলে ক্ষতি হচ্ছে চোখ ও শরীরের। চাপ পড়ছে মস্তিষ্কেও।

তবে চাইলে এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। সেক্ষেত্রে মানতে হবে কিছু নিয়ম।

দিনে বেশ কয়েকবার চোখে ঠাণ্ডা পানির ঝাপটা দিতে হবে। বাইরে থেকে এসে অথবা কম্পিউটারে বসে একটানা কাজ করার ফাঁকে চোখে পানির ঝাপটা দিতে হবে। এই কাজটা অভ্যাসে পরিণত করতে হবে।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ‘নাইট মোড’ বা ‘ওয়ার্ম মোড’ থাকে। এই অপশনটি অন করলে ফোনের স্ক্রিনের রঙ বদলে যায়। এর ফলে স্ক্রিন থেকে বের হওয়া ক্ষতিকর নীল রশ্মির পরিমাণ কম থাকে। ফলে আপনার চোখ কিছুটা হলেও এই ক্ষতিকর রশ্মির হাত থেকে রেহাই পাবে।

বিছানায় শুয়ে মোবাইল দেখার অভ্যাস থাকলে,তা এখুনি বদলে ফেলতে হবে।কারণ শুয়ে মোবাইল দেখলে চোখের সঙ্গে দূরত্ব সমান থাকে না। ফলে চোখের পেশিগুলির উপরে চাপ পড়ে। বেশিদিন এই অভ্যাস বজায় রাখলে প্রভাব পড়ে চোখে। চোখের দৃষ্টিশক্তি ঝাপসা হতে পারে। হতে পারে মাথা ব্যথাও। তাই মোবাইল দেখুন বসে। শুয়ে শুয়ে একেবারেই নয়।

বাসে বা ট্রেনে যাতায়াত করার সময় যতটা সম্ভব চোখ মোবাইল থেকে দূরে রাখতে হবে। কারণ এই সময় বাসের ঝাঁকুনির সময় মোবাইল দেখলে চোখের উপর প্রভাব পড়ে। চেষ্টা করুন মোবাইল না দেখার।খুব প্রয়োজন না হলে এই সময়টুকু মোবাইল না দেখাই ভালো। এতে চোখের ক্ষতি অনেকটাই কমবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.